1. selimnews18@gmail.com : একাত্তর এক্সপ্রেস :
  2. selim.bmail24@gmail.com : একাত্তর এক্সপ্রেস (টিম ২) : একাত্তর এক্সপ্রেস (টিম ২)
  3. asadzobayr@yahoo.com : Zobayr : আসাদ জোবায়ের
নিজের মধ্যে চ্যালেঞ্জও নিতে চান লিটন দাস
মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৩৯ অপরাহ্ন

নিজের মধ্যে চ্যালেঞ্জও নিতে চান লিটন দাস

নিউজ ডেস্ক:
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০

বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনে যুক্ত হয়েছে মিরপুরের হোম ভেন্যুর সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং-বোলিং। সোমবার (৩১ আগস্ট) সকাল থেকে শুরু হওয়া টাইগারদের এ অনুশীলনে ব্যাটিং করেছেন ওপেনার লিটন কুমার দাস। সেন্টার উইকেট পেয়ে রক্ষাণাত্মক, আগ্রাসী সবধরনের শটেই নিজেকে জ্বালিয়ে নিয়েছেন তিনি।

দীর্ঘদিন পর হোম ভেন্যুর উইকেটে ব্যাটিং অনুশীলনে নিজের মাঝে মনোযোগ ফেরানো চেষ্টা করছেন লিটন দাস। আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে ভালো করতে মনোযোগের সাথে নিজের মধ্যে চ্যালেঞ্জও নিতে চান তিনি।

অনুশীলন শেষে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) দেওয়া ভিডিও বার্তায় এমন কথা বলেন টাইগার ওপেনার লিটন কুমরা দাস। বলেন, যদি মনোযোগ আর চ্যালেঞ্জটা নিতে পারি তাহলে ভালো কিছু করা সম্ভব।

ভিডিও বার্তায় লিটন দাস বলেন, ‘একটি গ্যাপ হওয়ার কারণে মনে করি, ব্যাকফুটে আছি। শুধু আমি না, বিশেষ করে আমরা সবাই; বোলার থেকে শুরু করে ব্যাটসম্যান যারা আছেন। যারা একাদশে খেলবে সবাই ব্যাকফুটে’ই থাকবে। অনেক দিনের একটা গ্যাপ।’

নিজের সম্পর্কে লিটন দাস বলেন, ‘আমার যেটা মনে হয় আগের যে সিরিজটা খেলেছি সেখান থেকে একটা কনফিডেন্স আছে, অবশ্যই ওভার কনফিডেন্স নেই আমার। কারণ, প্রতিটা ম্যাচই ইমপোর্টেন্ট এবং আউট হওয়ার জন্য একটি বল’ই যথেষ্ট, যেটা আমি সবসময় বিলিভ করি -এ জন্য প্রতিটা বল’ই ফোকাস দিয়ে খেলতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘প্রাকটিসে এসে আমি চেষ্টা করছি যে, ওই মনোযোগটা আমি নিয়ে আসতে পারি কি-না। আগের সিরিজ যেভাবে শেষ করেছি মনোযোগ দিয়ে। সেই মনোযোগটা যেন আমি আবার মাঠে ফিরিয়ে আনতে পারি। আমার মনে হয়, মনোযোগ আর নিজের যদি চ্যালেঞ্জটা নিতে পারি, যে না’হ আমাকে আবারও ভালো কিছু করতে হবে, তাহলে মনে হয় সম্ভব ভালো কিছু করার।’

করোনার কারণে লকডাউনের সময় নিয়ে লিটন দাস বলেন, ‘লকডাউনে বেশিরভাগ সময় বাসাতেই ছিলাম, যেহেতু মাঠ ব্যবহার করার কোন পারমিশন ছিল না। চেষ্টা করছি বাসাতেই যে কাজগুলো করা যায়, যেমন- জিম, ট্রেডমিলে রানিং। এছাড়া পরিবারের সাথে অনেক সময় কাটিয়েছি। তবে বিষয়টা অনেক কঠিন ছিল।’

বলেন, ‘আমরা ক্রিকেট খেলছিলাম কন্টিনিউ, একটা জায়গা থেকে ব্রেক পড়া, মাঠে না আসা। এছাড়া রুমে যে জিনিসগুলো থাকে তার সাথে গ্রাউন্ডের অনেক পার্থক্য থাকে। ওই সময়ে বেশ কষ্ট লেগেছে। তবে, ওই সময়ে বিশেষ করে আমার আগের ব্যাটিংগুলো দেখেছি, কী কী জিনিসগুলো আরও উন্নতি করা যায়। এ বিষয়ে কোচদের সাথেও কথা বলেছি।’

মাঠের অনুশীলন ফিরে ভালো লাগছে বলেন জানান এ টাইগার ওপেনার। বলেন, ‘মিরপুরে ফিরতে পেরে নিজের কাছে অনেক ভালো লাগছে। অনেক দিন পর ক্রিকেট ব্যাট ধরতে পেরেছি। উইকেটের মাঝে ব্যাটিং করতে পারতেছি -এটা সবচেয়ে বড় জিনিস। এ জিনিসটা নিজেকে অনেকটা রিলিফ দিচ্ছে যে, না সামনে হয়তোবা ক্রিকেট আছে, আসলেই ক্রিকেট আছে সামনে। চেষ্টা করবো সামনে যে সিরিজটা আছে এখান (অনুশীলন) থেকে প্রিপারেশন নিয়ে যেন ভালো কিছু করা যায়।’

সবশেষে তিনি বলেন, ‘আর ওভারঅল অনেকদিন পর মাঠে এসে এটা ভালো লাগছে যে, যাদের সাথে খেলি সবসময় তাদেরকে পাশে পাচ্ছি। অনেক বিষয় শেয়ার করা হচ্ছে। এ বিষয়গুলো অনেক ভালো, ভালো লাগছে নিজের কাছে।’

  •  
    100
    Shares
  • 100
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের আরও খবর...

Comments are closed.