1. selimnews18@gmail.com : একাত্তর এক্সপ্রেস :
  2. selim.bmail24@gmail.com : একাত্তর এক্সপ্রেস (টিম ২) : একাত্তর এক্সপ্রেস (টিম ২)
  3. rafiqulislambd320@yahoo.com : একাত্তর এক্সপ্রেস : একাত্তর এক্সপ্রেস
  4. asadzobayr@yahoo.com : Zobayr : আসাদ জোবায়ের
সুবিধাবঞ্চিতরা পেল ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস এর সহায়তা
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন

সুবিধাবঞ্চিতরা পেল ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস এর সহায়তা

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১

 

করোনাভাইরাস দুর্যোগে(কোভিড-১৯) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের চাতল কলে কর্মরত সুবিধাবঞ্চিত ৩৫ টি পরিবারের মাঝে সম্প্রতি ১৮ টি খাদ্যসামগ্রী এবং ১০০ শিশুর মাঝে কাপড়, জুতা ও শিক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংগঠন ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস। সংগঠনটির এসব সহায়তা সামগ্রী অসহায়দের মাঝে বিতরণ করেন প্রকল্প পরিচালক(বাংলাদেশ) তৌহিদুর রহমান আদিল।

জানা গেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই সংগঠনটির সহায়তা সামগ্রীর মধ্যে ছিল খাদ্যসামগ্রী চাল, আলু, লন্ড্রি ডিটারজেন্ট, সাবান, মসুর, গমের আটা, তেল, গুঁড়ো দুধ, লবণ, পেঁয়াজ, চিনির প্যাকেট, বিস্কুট, মুরগির মশলা, রসুন, নুডলস, কয়েল। ১০০ শিশুর জন্য ছিল শিক্ষা উপকরণ কলম, পেন্সিল, কাগজ এবং কাপড় ও জুতা।

সুবিধাভোগী পরিবারগুলোর মধ্যে একজন মুনসুর মিয়া। তিনি বলেন, ‘এই করোনা মহামারীতে আমার এবং আমার পরিবারের সত্যি খুব কঠিন সময় পার করছিলাম। আমি যখন এই জিনিসগুলো হাতে পেলাম আমি সত্যি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। আমি সত্যিই কৃতজ্ঞ। ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস এর জন্য আমরা মন থেকে দোয়া করছি। আশা করি তারা তাদের ভাল কাজ চালিয়ে যাবে সামনের দিনগুলোতেও। ‘

আরেক সুবিধাভোগী সালমা বেগম একই রকম অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি এ কতটা ভালো লাগছে তা বলে বোঝাতে পারব না। এই সাহায্যটুকু এই সময়ে আমার এবং আমার পরিবারের খুব দরকার ছিল। এই প্রতিষ্ঠানের জন্য অনেক দোয়া রইল।’

সংগঠনটির প্রকল্প পরিচালক(বাংলাদেশ) তৌহিদুর রহমান আদিল বলেন, ‘এটি আমার সম্পূর্ণ অন্যরকম অভিজ্ঞতা। সহায়তা সামগ্রীগুলো প্রদান করার সময় পরিবারগুলোর প্রতিক্রিয়া দেখে আমরা খুব আনন্দিত হয়েছি। শুভ উদ্যোগে আমাকে সাথে রাখার জন্য আমি ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেসকে ধন্যবাদ জানাই।’

ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেসের কো-ফাউন্ডার
শাস্ত্রী কোওলস বলেন ‘এই মহামারীতে অসহায় পরিবার ও তাদের শিশুদের জন্য আমাদের সংস্থা সামান্য কিছু করতে পেরে আনন্দিত। আমি সত্যিকার অর্থে সেই শিশুদের অনুভব করি যাদের পিতামাতার শিক্ষাগত ব্যয় বহন করার সামর্থ্য না থাকার কারণে প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করতে পারে না। আমি এই বঞ্চিত শিশুদের জন্য বাংলাদেশে আরো কিছু করতে চাই৷

ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অনেস্ট কোওলস
‘আমাদের সকলের উচিত দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী পরিবারগুলোর জন্য বা যারা করোনাভাইরাসের ফলে সম্প্রতি নিজেকে বেকার হয়েছেন তাদের জন্য উদ্যোগ নেওয়া উচিত। এই করোনাকালীন সময়টি অত্যন্ত ভয়াবহ সময় তাদের জন্য। যখন আমি এই চাতল পরিবারগুলির সংগ্রামের কথা শুনেছিলাম আমি তাদের জীবনে কিছুটা আনন্দ এনে দিতে চেয়েছিলাম। আমি চাই ,যে সবাই সেই পরিবারগুলিকে সমর্থন করুক যারা কোভিড-১৯ এর এই অনিশ্চিত সময়ের মধ্যে সত্যিই লড়াই করে চলেছেন।’

উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংগঠন ফার্স্ট চয়েস ফ্যামিলি সার্ভিসেস এর লক্ষ্য আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ব্যক্তিদের জীবনযাত্রার উন্নতির পাশাপাশি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের পরিবারের বোঝা থেকে মুক্তি দিতে সহায়তা করা। সংগঠনটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

এই সংস্থা সম্পর্কে আরও জানতে তাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন:

Home

এ বিভাগের আরও খবর...

Comments are closed.